Prottashitoalo

হেয়ার স্ট্রেইটানারে চুলের ক্ষতি, প্রতিকারে প্রাকৃতিক পদ্ধতি

0 33

হেয়ার স্ট্রেইটনার ব্যবহারে চুলের অনেকটাই ক্ষতি হয়। ক্ষতিগ্রস্ত চুল প্রতিকার করতে আবার আমরা মেডিসিনের দারস্থ্য হই। তবে এসবে চুলের ক্ষতি আরো বাড়ে বৈকি কমে না।

টাইমস অফ ইন্ডিয়া’তে প্রকাশিত প্রতিবেদনে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি প্রসাধনী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘মিকামি ইন্ডিয়া’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা সৌম্য আহুজা বলেন, “চুল ভালো রাখতে এতে কোনো তাপীয় যন্ত্র ব্যবহার করবেন না। এটা কেবল চুলের উজ্জ্বলতাই নষ্ট করে না পাশাপাশি দুর্বল ও নির্জীবও করে তোলে।”

যদিও ‘স্টাইলিং টুলস’গুলো চুলের গ্ল্যামার বাড়ায়। তবে সেটা উপর দিয়ে। ভেতরে যা ক্ষতি করে তা হল- ভঙ্গুর চুল, শুষ্কতা এবং আগা ফাটার সমস্যা।

তাই চুলের ক্ষয় প্রতিকারের জন্য বেছে নিতে পারেন প্রাকৃতিক পদ্ধতি-

অ্যালো ভেরার জেল
শুষ্ক চুলের যত্নে অ্যালো ভেরার জেল সবচেয়ে ভালো মাস্ক হিসেবে কাজ করে। এর প্রদাহ নাশক উপাদান মাথার ত্বকের জ্বলুনি কমায়। চুল আর্দ্র রাখতে অ্যালো ভেরা ‘ডিপ কন্ডিশনার’ হিসেবে কাজ করে।

নিয়মিত তেল
চুল ভালো রাখার মূল চাবি কাঠি হল ‘তেল’। নিয়মিত তেল দেওয়া চুলের দুর্বলতা দূর করে ও শুষ্ক ভাব কমায়।

তেল দেওয়া চুলের ‘ফলিকল’কে মজবুত করে, মাথার ত্বক সুস্থ রাখে। আর চুল আর্দ্র ও মসৃণ করতে সহায়তা করে।

জিলেটিন
খাঁটি জিলেটিন চুলের ভিটামিন যোগাতে ভালো কাজ করে। এটা চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখে এবং মসৃণ ও উজ্জ্বলভাব আনে।

গরম পানিতে জেলেটন মিশিয়ে, সঙ্গে তেল যোগ করে চুলে ব্যবহার করুন। ভালো ফলাফল পাবেন।

আরো পড়ুন:- দায়িত্ব গ্রহণ করলেন বিমান বাহিনী প্রধান শেখ আব্দুল হান্নান

কলা ও মধুর মাস্ক
তাজা কলা পুষ্টিতে ভরপুর এবং এটা চুলে বেশ সুগন্ধিও যোগ করে। কলা চুলে চকচকেভাব আনে ও মজবুত করে। মধু আন্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ যা, তাপের কারণে হওয়া হওয়া চুলের ক্ষতি সারায় সহায়তা করে।

খাদ্যাভ্যাস
চুল ভালো রাখতে উন্নত খাদ্যাভ্যাসের বিকল্প নেই। মনোযোগ দিয়ে খাওয়া, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ওমেগা-থ্রি ধরনের খাবার খাদ্য তালিকায় রাখা, চুলের ক্ষতিপূরণে ইতিবাচক ভূমিকা রাখে।

চুল ভালো রাখতে কৃত্রিম তাপীয় যন্ত্র বা প্রসাধনী ব্যবহার না করে বরং প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে চুলের যত্ন করা উপকারী। এতে চুলের নানান সমস্যা দূর হয় এবং চুল দেখতে সুন্দর হয়।

ছবি: রয়টার্স।

Comments
Loading...