Prottashitoalo

বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ কোটি ছুঁই ছুঁই

0 3

বিশ্বজুড়ে আবারো বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। ভ্যাকসিন নেয়ার পরও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্ট ও ভারতের ভ্যারিয়েন্ট নতুন করে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। ইতিমধ্যে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ কোটির কাছাকাছি পৌঁছেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, বুধবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ৮টা পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ কোটি ৯৪ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৮ লাখ ৮০ হাজার ৭৫৮ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২১ কোটি ৬৭ লাখ ৯৯ হাজার ৫৬০ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। তালেকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪ কোটি ৫৪ লাখ ৩০ হাজার ১৪৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭ লাখ ৩৭ হাজার ৫৭৯ জনের। এসময় পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৪৯ লাখ ৯৭ হাজার ৪১১ জন।

আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৪০ লাখ ৫০০ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৫১ হাজার ২২০ জন। এসময় পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৩৩ লাখ ৩৫ হাজার ৩০১ জন।

আরো পড়ুন: করোনা টিকা নিলে মৃত্যুঝুঁকি কমে ৯০%: গবেষণা

আক্রান্তে তৃতীয় ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় ২ কোটি ১৫ লাখ ৯০ হাজার ৯৭ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ১ হাজার ৪৪২ জনের। এসময় পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৭ লাখ ২০ হাজার ৪৯৬ জন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি। ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে। করোনার প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে। ১১ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট রোগের নামকরণ করে ‘কোভিড-১৯’। ১১ মার্চ করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

Comments
Loading...