Prottashitoalo

‘পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে’

0 22

শিক্ষামন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি বলেছেন, দেশে করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে আগামী নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে এসএসসি এবং ডিসেম্বরে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মহিলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও প্রতিবন্ধীদের মধ্যে হুইল চেয়ার বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা বলেন। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জম্মবার্ষিকী উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

দীপু মনি বলেন, বর্তমানে দিন দিন করোনা সংক্রমণের হার কমছে। কিছুদিন আগেও এই সংক্রমণের হার ছিল ৩০-৩২ শতাংশ। এখন সেটা কমে ২২-২৩ শতাংশে নেমে এসেছে। গত এক সপ্তাহ ধরে এই হার কমছে। আমরা আশা করছি, পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে নভেম্বরের মাঝামাঝি এইচএসসি এবং ডিসেম্বরের শুরুতে এইচএসসি পরীক্ষা নিতে পারবো। আমাদের সেই প্রস্তুতি আছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি আছে। টিকা কার্যক্রমও চলছে। আশা করা যাচ্ছে, ওই সময়ে (নভেম্বর-ডিসেম্বর) পরিস্থিতি অনুকূলে আসবে। আমরা পরীক্ষা নিতে পারবো ইনশাল্লাহ। আর কোনো কারণে যদি পরিস্থিতি অনুকূলে না আসে তখন প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে ফরম পূরণও শুরু হয়েছে। এসএসসির ফরম পূরণ আগেই শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে এইচএসসিও ফরম পূরণ শুরু হলো। এই ফরম পূরণের জন্য পরীক্ষার্থীদের কোথাও যেতে হবে না, কলেজ থেকেই করে দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, পরীক্ষার্থীদের সিলেবাসও অনেক কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের যে অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে- সেগুলো যদি তারা করে এবং বইটা পড়ে তাহলে তাদের প্রস্তুতিটা হয়ে যাবে। তারা পরীক্ষা দিতে পারবে।

এর আগে আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি বলেন, বঙ্গমাতা কখনো চাননি তার সন্তানদের মধ্যে রাষ্ট্রপতির সন্তান বলে কোনো ধরনের আত্মগরিমা গড়ে উঠুক। তারা যেন নিজেদের সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিলিয়ে তার সঙ্গে দুঃখ-কষ্ট ও আনন্দ ভাগাভাগি করতে পারেন। একজন মায়ের চিন্তা কত বড় মাপের হলে এটা সম্ভব হয়।

স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যোগ্য নেতৃত্ব দিয়ে সবাইকে দেখিয়ে দিয়েছেন। তিনি এক সময়ের একটা ‘বটমলেস বাসকেটকে’ একটি সম্ভাবনার দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছেন। শেখ হাসিনা আজ একজন বিশ্ব নেতা হিসেবে প্রশংসিত হচ্ছেন।

আরো পড়ুন:- প্যারিসে আকাশচুম্বী লে রয়াল মনচিয়াও হোটেলে মেসি

তিনি বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অনেক নেতার সঙ্গে আমার কথা বলার সৌভাগ্য হয়েছে। তারা একবার না একবার জানতে চেয়েছেন- এই সফলতার মূল কারণ কি? আমি বলেছি- এই সফলতার কারণ বঙ্গবন্ধুর মতো তার কন্যা শেখ হাসিনারও এই দেশ ও দেশের মানুষে প্রতি ভালোবাসা। তারাও একমত হয়েছেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এই দেশের মানুষের প্রতি শেখ হাসিনার যে ভালোবাসা, মমত্ববোধ ও দূরদর্শিতা- সেজন্যই বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ আজ এই পর্যায়ে এসেছে। আজ আমরা মাথা উঁচু করে বলতে পারি, আমরা বাংলাদেশের মানুষ।

তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র করে যে ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে, তারা বুঝতে পারেনি জীবিত বঙ্গবন্ধুর মতোই তিনি মৃত্যুর পরও শক্তিরূপে প্রকাশিত হবেন। সেই শক্তিতেই সমস্ত বাঙালি জাগ্রত হবে। সেই জাগ্রত হয়েই আজ আমরা বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে তার স্বপ্নের পথে এগিয়ে যাচ্ছি।

মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া খাতুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে অসহায় প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়।

Comments
Loading...