জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীকে সহায়তা দেবে শিক্ষক সমিতি
prottashitoalo
Prottashito Alo is an online news portal based on Bangladesh with worldwide influence and readership. Founded in 20th February,2019 published from Dhaka in the Bengali language. It provides updated news faster, informative and authentic news compared to any other newspapers. Based on circulation, Prottashito Alo is the one of the most popular news portals in Bangladesh.

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীকে সহায়তা দেবে শিক্ষক সমিতি

0 ১৪

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

করোনা পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয় শতাধিক অসচ্ছল শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহায়তা দেবে শিক্ষক সমিতি। এরইমধ্যে শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রণয়নে প্রতিটি বিভাগের চেয়ারম্যানদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে প্রত্যেক বিভাগ থেকে ২০ জন করে শিক্ষার্থীর তালিকা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. নূরে আলম আব্দুল্লাহ।

ড. নূরে আলম আব্দুল্লাহ বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণে বাংলাদেশে সংকটময় পরিস্থিতি বিরাজ করছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অনেক অসচ্ছল পরিবারের সন্তান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে, যারা প্রধানত টিউশনি করে তাদের খরচ নির্বাহ করে। বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের টিউশনি বন্ধ রয়েছে এবং অনেকের মা-বাবার কোনো কাজ না থাকায় তাদের জীবন নির্বাহ করা প্রায় দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে।

এছাড়া বর্তমান পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের আরো কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়লে তা মোকাবেলার জন্য জরুরি ভিত্তিতে অর্থের প্রয়োজন দেখা দিতে পারে। এর প্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকের এক দিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেয়ার জন্য আহ্বান করে। শিক্ষক সমিতির এই ডাকে সাড়ে দেয় শিক্ষকরা। এনিয়ে এখন পর্যন্ত ৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ফান্ড জমা হয়েছে শিক্ষক সমিতির তহবিলে- বলেন ড. নূরে আলম।

ড. নূরে আলম আরো বলেন, আমাদের শিক্ষকরা সংখ্যায় কম। আর যাঁরা আছেন, সবাই নিজ নিজ বিভাগ ও এলাকায়ও সাহায্য সহযোগিতা করছেন। তা না হলে আমাদের আরো বড় ফান্ড করা যেত। তবে যে ফান্ড সংগ্রহ হয়েছে এর মধ্য থেকে শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের জন্য খরচ করা হবে। তবে এক্ষেত্রে ঢাকায় যেসব শিক্ষার্থী আটকা পড়েছেন তাদের প্রাধান্য দেওয়া হবে। প্রতি বিভাগের চেয়ারম্যানদের কাছে শিক্ষার্থীদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। তালিকা পেলেই আমরা কাজ শুরু করব।

Comments
Loading...