Prottashitoalo

চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে চায় দল-পরিবার

0 11

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করছে দল ও তার পরিবার।

এর আগে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে টানা ৫৪ দিন চিকিৎসা শেষে শনিবার বাসায় ফেরেন খালেদা জিয়া। বড় ধরনের কোনো শারীরিক সমস্যা তৈরি হয়নি তার। তবে তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ হতে পারেননি বলে জানিয়েছে একটি সূত্র। তার হার্ট, কিডনি ও লিভারে সমস্যা তৈরি হয়েছে। এছাড়া তার পুরনো অসুখ আর্থারাইটিসও রয়েছে।

হাসপাতালে সংক্রমণের শঙ্কায় তাকে গুলশানের বাসভবন ফিরোজাতেই চিকিৎসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা। একইসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনা করে তাকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুপারিশও করেছেন তাদের প্রতিবেদনে।

এ পরিপ্রেক্ষিতে দল ও পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে আবারও উদ্যোগ গ্রহণ করছেন বলে জানা গেছে।

এর আগে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তির পর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নিতে মে মাসের প্রথম সপ্তাহে সরকারের কাছে আবেদন করেন পরিবারের সদস্যরা। আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত নিয়ে ৯ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আইন অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে বিদেশে যেতে সরকার অনুমতি দেবে না। কিন্তু এরপরও পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ করে খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে দলের একটি সূত্র জানিয়েছে।

আরো পড়ুন:- কাঞ্চন মল্লিকের বিরুদ্ধে থানায় স্ত্রীর অভিযোগ

এসব বিষয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও কারও বক্তব্য পাওয়া যাযনি। তবে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসায় বিদেশে নেওয়ার বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, দীর্ঘ চার বছর খালেদা জিয়ার চিকিৎসা না হওয়ায় এবং কারাগারে রাখার কারণে তিনি অনেকগুলো রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তার মধ্যে প্রথম তার হার্টে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তার কিডনিতে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তার লিভারে সমস্যা তৈরি হয়েছে। তার পুরনো অসুখ আর্থারাইটিসও রয়েছে। সবগুলো মিলে তিনি অত্যন্ত অসুস্থ আছেন। এসব রোগের উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নেওয়া প্রয়োজন।

Comments
Loading...