Prottashitoalo

চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণের হার ৪.৯৬ শতাংশ

0 12

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ওমিক্রন দ্রুত ছড়াচ্ছে। বাংলাদেশেও বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৭৬ জন নতুন বাহক শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণ হার ৪ দশমিক ৯৬ শতাংশ। তবে এ সময় শহর ও গ্রামে কারো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

করোনা সংক্রান্ত জেলার হালনাগাদ পরিস্থিতি নিয়ে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রতিবেদনে এ সব তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি ও নগরীর আট ল্যাবরেটরিতে গতকাল ১ হাজার ৫৩০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নতুন আক্রান্ত ৭৬ জনের মধ্যে শহরের ৭১ ও পাঁচ উপজেলার ৫ জন। উপজেলার ৫ জনের মধ্যে রাউজান, ফটিকছড়ি, হাটহাজারী, সন্দ্বীপ ও বোয়ালখালীতে একজন করে রয়েছেন। জেলায় করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ২ হাজার ৯৮০ জনে। এর মধ্যে শহরের ৭৪ হাজার ৫৭৫ জন এবং গ্রামের ২৮ হাজার ৪০৫ জন।

গতকাল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কেউ মারা যায়নি। মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৩৩৩ জনই রয়েছে। এতে শহরের ৭২৩ ও গ্রামের ৬১০ জন।

আরো পড়ুন: ক‌রোনা নিয়ন্ত্রণে জাতীয় কারিগরি কমিটির ৪ সুপারিশ

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, বেসরকারি ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরি শেভরনে গতকালও সবচেয়ে বেশি ৫৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে শহরের ১৭ ও গ্রামের ৩ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে। ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে ৩২২টি নমুনা পরীক্ষায় শহরের ৯টিতে জীবাণু পাওয়া যায়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ল্যাবে ৬২ জনের নমুনায় শহরের ১২ জন পজিটিভ শনাক্ত হন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৪টি নমুনার মধ্যে শহরের একটিতে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় শহর ও গ্রামের একজন করে আক্রান্তের প্রমাণ মিলেছে।

বেসরকারি আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে ৩০০টি নমুনা পরীক্ষায় শহরের ১৯টিতে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এপিক হেলথ কেয়ারে ৩১ জনের নমুনায় শহরের ৬ জনের পজিটিভ আসে। মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ১৮টি নমুনার মধ্যে শহরের ৩ টিতে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এশিয়ান স্পেশালাইজড হাসপাতাল ল্যাবে পরীক্ষিত ১৯১টি নমুনা পরীক্ষায় গ্রামের ৪টির পজিটিভ আসে।

এদিন বিশেষায়িত কভিড-১৯ চিকিৎসা কেন্দ্র আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের আরটিআরএল, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল, মেডিকেল সেন্টার হাসপাতাল, ল্যাব এইড, এশিয়ান স্পেশালাইজড হাসপাতাল ও এন্টিজেন টেস্টে কোনো নমুনা পরীক্ষা হয়নি। চট্টগ্রামের কোনো নমুনা কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়নি।

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্ট বিশ্লেষণে শেভরনে ৩ দশমিক ৫৪ শতাংশ, বিআইটিআইডি’তে ২ দশমিক ৭৯, চমেকহা’য় ১৯ দশমিক ৩৪, চবি’তে ৪ দশমিক ১৬, সিভাসু’তে ৫ দশমিক ৫৫, আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে ৬ দশমিক ৩৩, এপিক হেলথ কেয়ার ১৯ দশমিক ৩৫, মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ১৬ দশমিক ৬৬ এবং এশিয়ান স্পেশালাইজড হাসপাতাল ল্যাবে ২ দশমিক ০৯ শতাংশ সংক্রমণ হার নির্ণিত হয়।

Comments
Loading...