Prottashitoalo

আত্মহত্যার জঙ্গল!

0 5

পৃথিবীতে ২০০টির বেশি দেশ রয়েছে। পৃথিবী জুড়ে ছড়িয়ে আছে ৭.৫ বিলিয়ন মানুষ। নানা বর্ণ ও রঙের মানুষ রয়েছে, সেই সাথে রয়েছে বিচিত্র সব খাবার, স্থানসহ নানা কাহিনী। যে সব কাহিনী হয়ত আমাদের চিন্তার বাইরে। তেমনই এক আজব ঘটনা রয়েছে জাপানে।

শোনা যায়, এই দেশে একটি জঙ্গল রয়েছে, যেখানে দিনে বেশ কয়েকটি আত্মহত্যা হওয়া সাধারন ঘটনা। এখানে নাকি প্রতিবছর গড়ে ১০০ জন মানুষ আত্মহত্যা করেন। এই জঙ্গলে নাকি মানুষ আত্মহত্যা করতেই আসে।

জাপানের ফুজি পর্বতমালার উত্তর-পশ্চিম ভাগে এই জঙ্গলটি দেখতে পাওয়া যাবে। এর নাম অওকিগাহারা। এর থেকে উপরে সবার প্রথমে রয়েছে আমেরিকার সানফ্রান্সিসকোর গোল্ডেন ব্রিজ। পরিসংখ্যান বলছে, আত্মহত্যার সংখ্যার বিচারে এই জঙ্গলটি নাকি বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে।

আরও পড়ুন: যে শহরের বাসিন্দারা মরে না!

আসলে এর মধ্যে রয়েছে একটি রহস্য। স্থানীয় মানুষ বিশ্বাস করে এই জঙ্গলে নাকি মৃত ব্যক্তির আত্মাকে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। ফলে কোন সাধারন মানুষ এলে তাকে আত্মহত্যার পথে ঠেলে দেয় এই আত্মরাই। এমনকি ঊনবিংশ শতাব্দীতে “উবাসু” নামক এক এলাকার মানুষ একটি রীতি পালন করতেন যা খুবই অদ্ভুত ছিল। পরিবারের বৃদ্ধ সদস্য যারা প্রায় মৃত্যুর দিকে এগিয়ে চলেছে তাদেরকে তারা এই জঙ্গলে এনে একা ছেড়ে দিতেন। এরপর সেই জঙ্গলে ঘুরতে ঘুরতেই মৃত্যু হত সেই বৃদ্ধদের। বলা হয় সেই মৃত ব্যক্তিদের অতৃপ্ত আত্মাগুলোই নাকি এখানে ঘুরে বেড়ায় আর মানুষ দেখলে তাদেরকেও নিজেদের পরিণতি দেখতে চায়।

শেষ হিসাব অনুযায়ী, ২০০৪ সালে মৃতের সংখ্যা নাকি ১০০-এর থেকেও বেড়ে দাঁড়ায় ১০৮এ। তারপর থেকে স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশ অনুসারে মৃতের সংখ্যা প্রকাশ করার নিয়ম একেবারেই বন্ধ করে দেয়া হয়। তাই এরপর থেকে আর সেই সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। তার আগে ২০০২ সালে মৃতের সংখ্যা ছিল ৭৮। এরপর ২০০৩ সালে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১০০ তে। সূত্র: কলকাতা ২৪x৭

Comments
Loading...