Prottashitoalo

আইভী রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে বনানী কবরস্থানে আ.লীগের শ্রদ্ধা

0 23

আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক, নারীনেত্রী ও মুক্তিযোদ্ধা বেগম আইভি রহমানের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট)। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলায় গুরুতর আহত হওয়ার পর টানা তিন দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে ২৪ আগস্ট তিনি মারা যান।

আইভি রহমানের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) বনানী কবরস্থানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে এ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষে আইভী রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা ছিল ইতিহাসের নৃশংস ঘটনা। সেদিন প্রাইম টার্গেট ছিলেন আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশ করতে গিয়ে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের শিকার হন তিনি।

আরো পড়ুন: বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক শক্তির নির্ভরযোগ্য আস্থার ঠিকানা

এসময় আইভী রহমানকে স্মরণ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি আজ আইভী রহমানসহ সেদিন নিহত সবাইকে স্মরণ করছি। তার মধ্যে কখনও অহম বোধ দেখিনি, এমন নির্লোভ নেতা বাংলাদেশে কমই দেখা যায়। তিনি কখনও সভা মঞ্চে বসতেন না। কর্মীদের সঙ্গে মাঠে বসতেন। সেদিন ও ট্রাকের বাইরে মিছিল নিয়ে কর্মীদের সঙ্গে ছিলেন।

ওবায়দুল কাদেরের ফুল নিবেদন শেষে আইভী রহমানের কবরে একে একে শ্রদ্ধা জানায় আওয়ামী লীগ ও এর বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন। এর মধ্যে আছে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ, তাতি লীগ, কৃষক লীগ।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত সন্ত্রাসবিরোধী মিছিলের আগে এক শান্তিপূর্ণ সমাবেশে গ্রেনেড হামলা ও গুলি বর্ষণ করে ঘাতকের দল। এ হামলায় আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক বিশিষ্ট নারীনেত্রী আইভী রহমান গুরুতরভাবে আহত হন। তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সাবেক সদস্য এবং প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী। এ হামলায় ঘটনাস্থলে দলের ২৩ জন নেতাকর্মী মারা যান। আহত আইভী রহমানকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি চারদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ২৪ আগস্ট শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

Comments
Loading...